স্বাস্থ্য

ডিম খাওয়ার উপকারীতা সম্পর্কে জানুন

প্রতিদিন একটি করে ডিম খাবো,তা জানার জন্য আজকে আমার এই আর্টিকেলটি আপনাদের জন্য লেখা আর্টিকেলটি পড়ে সহজেই জানতে পারবেন ডিমের যেসব উপকারিতা এবং আপনার স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য অবশ্যই প্রতিদিন একটি করে ডিম খাওয়া উচিত? আমরা কমবেশি সবাই জানি ডিমের পুষ্টির গুনাগুন সম্পর্কে অন্তত প্রতিদিন একটি করে নাস্তায় খেতে পারলে সহজে আপনার শরীরের বিভিন্ন ধরনের শারীরিক সমস্যা দূর হয়ে যাবে। তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক আজকের ডিম সম্পর্কিত আমার কন্টেইনটি।  https://daliatista.com

ডিম ক্যান্সারকে প্রতিহত করতে সাহায্য করে

ডিমের ভিতরে থাকা যেসব কোলিন শরীরে প্রবেশ করে যা সহজে ক্যান্সারের সেল জন্মানো আশঙ্কায় একেবারেই কমে যায়। বিশেষ করে মহিলাদের ব্রেস্ট ক্যান্সারের আক্রান্ত হওয়ার সুযোগ সবচেয়ে কম।

ডিম খেলে হৃদপিণ্ড সুস্থ থাকে

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে একজন মানুষ যদি নিয়মিত ডিম  খেতে পারে তাহলে শরীরের কোলেস্টেরলের তা বৃদ্ধি পায় ফলে হৃৎপিণ্ডের কোন ক্ষতি বা অন্য কোন অসুখ থেকে সহজেই আশঙ্কা কমে যায়। সেইসঙ্গে হার্টের যে বিভিন্ন ইনফেকশন কবে যেতে সহায়ক ভুমিকা পালন করে থাকে।আপনার যদি পারিবারিক হার্টের অসুখের ইতিহাস থাকে তাহলে পরিমিত ডিম খাওয়ার অভ্যাস রাখুন ইনশাআল্লাহ আপনি মুক্তি পাবেন ।

আমাদের-কেন-প্রতিদিন-ডিম

ডিম খেলে শরীরের কোলিনের ঘাটতি মিটে যায়

 গবেষণায়  প্রমাণিত হয়েছে যে, আপনি যদি প্রতিদিন ডিম খায় তাহলে শরীরের কোলিনের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে থাকে। এর ফলে নার্ভের ক্ষমতা বাড়ে এবং বেশি ক্ষমতা বাড়তে সাহায্য করে হজম ক্রিয়া উন্নতি ঘটে। তাই সার্বিকভাবে শরীরকে চাঙ্গা রাখতে প্রতিদিন সকালে একটি করে ডিম খেতে ভুলবেন না।

আমাদের-কেন-প্রতিদিন-ডিম-

শরীরের  প্রোটিনের ঘাটতি দূর করে

 ডিমে প্রচুর পরিমাণ  অ্যালবুমিন  নামক যে প্রোটিনটি মানুষের শরীরে পেশির গঠনে অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা রাখতে থাকে ।তাই আমাদের  শরীরের শক্তি বৃদ্ধির জন্য এবং শরীরের অভ্যন্তরীণ ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য সকালে ডিম খাওয়া অত্যন্ত জরুরী।

আর যারা শহরে নিয়মিত করেন তাদের জন্য অবশ্যই একটি করে ডিম খেতে হবে। এতে করে আপনার শরীরের যে কোন রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারেন। আমাদের-কেন-প্রতিদিন-ডিম

মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি  পায়

আমাদের বুদ্ধি বাড়ুক কেনা চায় আমরা সবাই চাই আমরা মস্তিষ্ক যেন সব সময় চাঙ্গা থাকে। আর মানব শরীরে বুদ্ধির জোর বাড়াতে অবশ্যই সকালের নাস্তায় একটি করে ডিম খেতে হবে। 

ডিম খিদা মেটাতে সাহায্য করে

আপনি যদি সকালে একটি করে ডিম সিদ্ধ অথবা অমলেট কোষ যেকোনো উপায়ে খান না কেন? দেখবেন আপনার অনেক সময় পর্যন্ত খিদা লাগছে না ।এমনকি আপনি দুপুরের আগ পর্যন্ত খিদে নিয়ে কোন সমস্যায় ভুগবেন না।

শরীরের পুষ্টিকর উপাদানগুলোর ঘাটতি  মেঠায়

আমাদের প্রতিদিন একটি করে ডিম খেতে পারলে আমাদের শরীরের প্রোটিন ভিটামিনের চাহিদা মেটার পাশাপাশি ফসফরাস, ক্যালসিয়াম, সেলেনিয়াম এবং  জিংক এর ঘাটতি পূরণ করতে মারাত্মক ভূমিকা পালন করে। 

ডিম খেলে ওজন কমে

আমাদের কম-বেশী সবারই জানা ডিম খেলে বদহজম হয় এবং ওজন বাড়তে সাহায্য করে।   এটাই একেবারেই ভুল ধারণা, ডিম খেলে ওজন বাড়ে না বরং ডিম খেলে ওজন কমতে সাহায্য করে। পেনিংটন বায়োমেডিকাল রিসার্চ সেন্টারে গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে সকালে ডিম খেলে দিনের অনেকটা সময় পর্যন্ত ক্ষুধা পায় না। 

তাহলে খাওয়ার যে পরিমাণ কমে যায় সেই সঙ্গে শরীরের  মাত্রাতিরিক্ত ক্যালরি জমার সম্ভাবনা কম থাকে। ফলে স্বাভাবিকভাবে ওজন কমতে সাহায্য করে, তাই শরীরের ওজন কমাতে নিয়মিত একটি করে ডিম হওয়া উচিত।

বয়সের ছাপ পড়তে ডিম বাধা দান করে 

আমাদের-কেন-প্রতিদিন-ডিম- ডাচ বিজ্ঞানীদের সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে যে মানুষের প্রতিদিন ডিম খাওয়া থেকে বয়স ৩৫ থেকে ৪০ বছর ৮৭ শতাংশ মহিলার ত্বকে থাকা বয়সের চিহ্ন দুর  হয়েছে। এমনকি চামড়া ঝুলে পড়া ভাব দূর হয়েছে।

আর পুরুষদের ক্ষেত্রে যারা প্রতিদিন দুটো করে ডিম খেয়েছে তাদের চোখের নিচে যে সমস্ত ভাত দৃশ্যমান হয় তার পরিমাণ একেবারেই কমে গেছে। https://www.google.com

এতদিন আমরা জেনে এসেছি ডিম খেলে মোটা হয়, হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে ইত্যাদি, যা আদৌ সঠিক নয়। বরং অন্যান্য স্বাস্থ্যকর খাবারের সাথে প্রতিদিন অন্তত দুটো ডিম খাওয়ার উপকারীতা অনেক।তাই প্রতিদিন একটি করে ডিম খাওয়া আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকার।

মহিলাদের গর্ভধারণের সাহায্য করে

মানব শরীরে সেক্স হরমোন গুলোর গঠনে ভিটামিন বি অন্যতম ভূমিকা পালন করে । যে সমস্ত মহিলা  গর্ভধারণ করতে ইচ্ছুক তাদের জন্য ভিটামিন বি9 এ থাকা ফলিক এসিড খুবই প্রয়োজন।  এছাড়া বাচ্চার মানসিক প্রতিবন্ধকত দাও দূর করতে সাহায্য করে। আপনি কি জানেন? একটি মুরগির ডিমে 7.0 মাইক্রগ্রাম ভিটামিন বি৯ পাওয়া যায়। অতপর: গর্ভধারণ এ ডিমের বিকল্প নেই।

আমাদের-কেন-প্রতিদিন-ডিম-

ডিম খেলে ভিটামিন ডি  ক্যালসিয়াম শোধনে সাহায্য করে

আমাদের শরীরকে যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ডি সরবরাহ করতে চান তাহলে এক চামচ মাছের তেল অথবা একটি সিদ্ধ ডিম খেতে হবে। তাই অনেক মানুষ এই দ্বিতীয় পদ্ধতিটি বেছে নিবে, আপনি জানলে অবাক হবেন এই দুটো পদ্ধতি ভিটামিন ডি আসল উৎস।

অনেক জায়গায় মুরগির ফার্মের মালিকরা ভিটামিন ডির পরিমাণ বাড়াতে মুরগিকে ভিটামিন ডি খাওয়াইয়া থাকে।খাবারের সাথে আমরা যে সমস্ত ক্যালসিয়াম গ্রহণ করে থাকি এবং তা  শোধন করতে ভিটামিন ডি এর প্রয়োজন হয়। অতঃপর মানব শরীরের ক্যালসিয়াম দাঁত ও হাড়কে শক্ত মজবুত করে।

ডিম খেলে ভিটামিন বি কমপ্লেক্স ত্বক চুল ও লিভার সুস্থ থাকে

আমাদের শরীরের চুল ও ত্বক শক্ত ও টানটান রাখতে সাহায্য করে ভিটামিন বি12  বায়োডিন এবং সহজে হতো হয় এমন একটি পুষ্টিকর প্রোটিন। ডিম খেলে আমাদের লিভারের যে সমস্ত বিষাক্ত পদার্থ থাকে তা দূর করতে সাহায্য করে। যা মুরগির ডিমে থাকা ফসফোলিপিড উপাদান।

আমাদের-কেন-প্রতিদিন-ডিম

 উপসংহারঃ উপরিক্ত তথ্য উপাত্ত দিয়ে জানা গেল যে মানব শরীরের জন্য ডিম খাওয়া অত্যন্ত উপকারী যা আমাদের শরীরকে বিভিন্ন রোগ বালাই থেকে মুক্ত রাখার জন্য ডিমের কোন বিকল্প নেই। তাই আমাদের সুস্থ থাকার জন্য প্রতিদিন অন্তত একটি করে ডিম খাওয়া প্রয়োজন। আশা করি সকলেই বুঝতে পেরেছেন আজকের মত এখানেই শেষ করছি সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।

 

admin

মোঃ শফিকুল ইসলাম লেবু (Lecturer) ডালিয়া, ডিমলা, নীলফামারী। আমি বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে কন্টেইন ও ব্লগিং পোষ্ট করে থাকি, এ ব্যাপারে পাঠকগন মতামত দিলে - যথাসম্ভব উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *