আন্তর্জাতিক

ই-পাসপোর্ট ফরম পূরণের জন্য যে সব নিয়মাবলী মনে রাখবেন

ই-পাসপোর্ট-ফরম-পূরণ- বাংলাদেশে ই- পাসপোর্ট  ফরম পূরণ অনলাইনে  করার ব্যাপারে আজকে আমার আর্টিকেলটি আপনাদের জন্য লেখা যারা অনলাইনে ই -পাসপোর্ট করতে চান। আর  ই -পাসপোর্ট করতে যে সমস্ত ক্রাইটেরিয়া আপনাকে ফিলাপ করতে হবে, তা আপনাদেরকে অবগত করব। যা আপনারা এখান থেকেই সহজেই অনলাইনেই ই-পাসপোর্ট করতে সক্ষম হবেন। তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক আজকের ই- পাসপোর্ট করার নিয়মাবলী।

যেভাবে অনলাইনে ই- পাসপোর্ট ফরম পূরণ করবেন

ই-পাসপোর্ট করার জন্য প্রথমে আপনাকে যে কোন একটি ব্রাউজার ওপেন করতে হবে,তারপর এই ঠিকানায় যেতে হবে- https://www.epassport.gov.bd/ 

ই-পাসপোর্ট-ফরম-পূরণ

ব্রাউজার ওপেন করার পরে আপনি নিচের এরকম একটি পেজ দেখতে পারবেন সেখানে আপনাকে ৫টি  ধাপ অতিক্রম করে সহজেই এই পাসপোর্ট করতে সক্ষম হবেন। 

সকল তথ্য সঠিকভাবে পুরন করার পর আপনী ই-পাসপোর্ট পেতে সক্ষম হবেন।

ই – পাসপোর্ট অনলাইনে ফরম পূরণ করার নিয়মাবলী

১।  অনলাইনে ই-পাসপোর্ট করা যায়

২। সত্যায়ন করা লাগে না

অনলাইনে ই পাসপোর্ট আবেদনের ক্ষেত্রে কোন কাগজপত্র গেজেটেড কর্মকর্তার কাছে সত্যায়ন করার  প্রয়োজন হবে না।

৩। ছবি সত্যায়ন করা লাগে না

৪। এন আই ডি/ জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ইংলিশে পূরন করতে হবে

আপনি যখন অনলাইনে এই পাসপোর্ট রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করবেন সেখানে অবশ্যই আপনাকে আপনার  জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন  সনদ ইংলিশ ভার্সন অনুযায়ী আবেদন পূরণ করতে হবে। 

https://daliatista.com

৫। অপ্রাপ্ত বয়স্ক ক্ষেত্রে পিতা/মাতার (NID) দিতে হবে

ই-পাসপোর্ট-ফরম-পূরণ-আপনাকে মনে রাখতে হবে অপ্রাপ্তবয়স্ক যেমন ১৮ বছরের কম এই সমস্ত আবেদনকারী যার জাতীয় পরিচয় পত্র নাই সে ক্ষেত্রে তার পিতা অথবা মাতার জাতীয় পরিচয় পত্র এন আই ডি নম্বর অনুযায়ী অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে। 

৬। জাতীয় পরিচয় পত্র অনুযায়ী অথবা অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ ইংলিশ ভার্সন অনুসারে প্রদান করতে হবে-

(ক) যদি আবেদনকারী ১৮ বছরের কম হয় তাহলে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন ইংলিশ ভার্সন অনুযায়ী পূরণ করতে হবে।

(খ) আবেদনকারীর বয়স ১৮ থেকে ২০ বছর হলে জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ ইংলিশ ভার্সন অনুযায়ী হতে হবে।

(গ) আবেদনকারীর বয়স ২০ বছরের উর্ধ্বে হলে জাতীয় পরিচয়পত্র অবশ্যই লাগবে। আর যদি বিদেশস্থ বাংলাদেশ মিশর হতে যদি আবেদন করতে চায় সে ক্ষেত্রে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন হবে।

ই- পাসপোর্ট অনলাইনে আবেদন ক্ষেত্রে যে সমস্ত তারকা চিহ্ন ঘর থাকবে সেগুলোকে অবশ্যই পূরণ করতে হবে।

৮। আবেদনের ঠিকানা

অনলাইনে ই- পাসপোর্ট আবেদনের জন্য আবেদনকারীকে বর্তমান ঠিকানা সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস আঞ্চলিক অফিস / বিদেশস্থ বাংলাদেশ মিশনে দাখিল করতে হবে।

১০। আবেদনকারী ১৮/৬৫ বছরের ক্ষেত্রে

ই- পাসপোর্ট অনলাইনে আবেদনের জন্য প্রার্থীকে ১৮ বছরের নিম্নে এবং ৬৫ বছরের উর্ধ্বে সকল আবেদন এর মেয়াদ হবে ৫ বছর এবং ৪৮ পৃষ্ঠার বই।

১১। প্রয়োজনে সনদ

ই-পাসপোর্ট-ফরম-পূরণ -প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক টেকনিক্যাল সনদ সমূহ  ( যেমন ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার ড্রাইভার ইত্যাদি) আপলোড/ সংযোগ করতে হবে।

১২। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ইস্যুকৃত কাগজপত্র

অনলাইনে আবেদন করার সময় অনেক ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক জিও/ এনওসি প্রত্যয়ন পত্র অবসার গ্রহনকরীগন ছুটির আদেশ  পেনশন বই আপলোড সংযুক্ত করতে হবে।

১৩। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে বিবাহ/নিকাহনামা কাগজ

অনেক ক্ষেত্রে বিবাহ সনদ/ নিকাহনামা বিবাহ বিচ্ছেদের তালাকনামা পত্র দাখিল করতে হবে।

১৪। দেশের অভ্যন্তরে আবেদনের ক্ষেত্রে ফি

ই-পাসপোর্ট-ফরম-পূরণ- বাংলাদেশের অভ্যন্তরে যদি কোন ব্যক্তি আবেদন করে সেক্ষেত্রে প্রযোজ্য ফি এর উপর নির্ধারিত হারে ভ্যাট সহ এবং সার্ভিস চার্জ অতিরিক্ত হিসেবে প্রদান করতে হবে। আর বিদেশে আবেদনের ক্ষেত্রেও সরকার কর্তৃ নির্ধারিত এই প্রদেয় হবে।

১৫। কূটনৈতিক পাসপোর্টের ক্ষেত্রে

অনলাইনে ই পাসপোর্ট  কূটনৈতিক পাসপোর্ট এর জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কনসিলার ওয়েলফেয়ার ইয়ং অথবা ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয় বরাবরে একটি আবেদন পত্র দাখিল করতে হবে।

১৬। বৈদেশিক মিশনের ক্ষেত্রে

যদি কোন প্রার্থী বৈদেশিক মিশান  পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করতে চায় সেক্ষেত্রে স্থায়ী ঠিকানার কলামে বাংলাদেশের যোগাযোগের ঠিকানা উল্লেখ করতে হবে।

১৭। জরুরী পাসপোর্টের ক্ষেত্রে

যদি কোন আবেদনকারীর জরুরি  পাসপোর্ট এর আবেদন করেন তাহলে নিজ উদ্যোগে তাকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ সংগ্রহ করে আবশ্যিকভাবে আবেদনের সাথে দাখিল করতে হবে।

(ক) যদি জরুরী পাসপোর্ট এর দেশের অভ্যন্তরে অতি জরুরী পাসপোর্ট প্রার্থীর লক্ষ্যে একজন প্রার্থীকে আবেদনের সাথে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সঠিক ভাবে দাখিল করতে পারলে আগামী  ২  দিনের মধ্যে পাসপোর্ট প্রদান করা সম্ভব।

( খ) কোন আবেদনকারী দেশের অভ্যন্তরে রেগুলার পাসপোর্ট প্রাপ্তির লক্ষ্যে আবেদনের সাথে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স দাখিল করা হলে আর সকল তথ্য সঠিক হলে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট প্রদান করা হয়ে থাকে।

১৮। মুল জাতীয় পরিচয় / অন্যন্য কাগজ প্রদর্শন

ই-পাসপোর্ট-ফরম-পূরণ-একজন আবেদনকারী আবেদনের সময় তার মূল জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা অনলাইন জন্ম নিবন্ধন প্রযোজ্য ক্ষেত্রে টেকনিক্যাল সনদ সরকারি আদেশ অন আপত্তি এ সকল কাগজপত্রাদি দাখিল করতে হবে। https://www.google.com

(ক) পাসপোর্ট ই ইস্যুর ক্ষেত্রে প্রার্থীর মূল পাসপোর্ট দেখাতে করতে হবে।

(খ) হারানো পাসপোর্ট এর ক্ষেত্রে প্রার্থীকে অবশ্যই মূল  থানার জিডির কপি দেখাতে হবে।

(গ) আবেদনকারীর বয়স ৬ বছরের নিচে হলে সেক্ষেত্রে 3r সাইজের ল্যাপ প্রিন্ট গ্রে – ব্যাকগ্রাউন্ড ছবি দিতে হবে।

শেষ কথাঃ ই পাসপোর্ট অনলাইনে আবেদনের ক্ষেত্রে যে সমস্ত ক্রাইটেরিয়া আপনাকে পূরণ করতে হবে তা আজকে আমার এই আর্টিকেলটিতে আপনাদের মাঝে উপস্থাপন করলাম। আশা করি আপনাদের উপকারে আসবে। আর যদি আপনাদের আমার এই কন্টেইনটি ভালো লাগে, তাহলে অবশ্যই আপনার প্রিয় মানুষের কাছে শেয়ার করতে ভুলবেন না। সেই সাথে আমার আর্টিকেলগুলি যদি আপনারা সহজে পেতে চান, তাহলে আমার ফেসবুক পেজ ( Shofiqul Islam Lemon) পেজটি ফলো দিয়ে পাশে থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ

 

admin

মোঃ শফিকুল ইসলাম লেবু (Lecturer) ডালিয়া, ডিমলা, নীলফামারী। আমি বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে কন্টেইন ও ব্লগিং পোষ্ট করে থাকি, এ ব্যাপারে পাঠকগন মতামত দিলে - যথাসম্ভব উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *