শিক্ষা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাচ্যের অক্সফোর্ট, বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন প্রতিষ্ঠান

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়- প্রিয় পাঠক, আজ আমি আমার এই কন্টেইনটিতে আপনাদেরকে জানাবো ভারত উপমহাদেশের অন্যতম প্রাচীন ও সর্ববৃহৎঐতিহ্যবাহী উচ্চ শিক্ষা গবেষণা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নামে খ্যাতি অর্জন করেছে। এটি ১৯২০ সালে ভারতীয় বিধানসভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন বলে 1921 সালে ১ জুলাই আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হয়। এই বিশ্ববিদ্যালয় টি ঢাকার রমনা এলাকা নিয়ে প্রায় ৬০০ একর  জমি নিয়ে প্রতিষ্ঠা করা হয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়টি তিনটি অনুষদ (কলা বিজ্ঞান ও আইন) ১২ টি বিভাগ ৬০ জন শিক্ষক ও ৮৪৭ জন ছাত্রছাত্রী নিয়ে তিনটি আবাসিক হল নিয়ে  প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষা কার্যক্রম যাত্রা শুরু করে। চলুন জেনে নেয়া যাক- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল তথ্য সমূহ 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যেভাবে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে ?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বপ্রথম তিনটি অনুষদ কলা, বিজ্ঞান ও আইন বিভাগ  মোট ১২  টি বিভাগ ৬০ জন শিক্ষক ও ৮৪৭ জন ছাত্রছাত্রী ও তিনটি আবাসিক হলে প্রতিষ্ঠানটি  শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে এর মধ্যে রয়েছে কলা অনুষদের ৮ বিভাগ যথা-  https://daliatista.com

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়

কলা অনুষদ বিভাগ-

  • বাংলা ও সংস্কৃত
  •  ইংরেজি শিক্ষা
  •  ইতিহাস
  •  আরবি ও ইসলামিক স্টাডিজ
  •  ফারসি ও উর্দু
  •  দর্শন 
  •  রাজনৈতিক
  •  অর্থনীতি

বিজ্ঞান অনুষদ বিভাগ-

  • পদার্থবিদ্যা
  • রসায়ন
  • গনিত

আইন অনুষদ বিভাগ-

এই অনুষদের অধীনে শুধুমাত্র আইন বিভাগ ছিল।

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়-এই তিনটি অনুষদে ৮৭৭ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়ে শহীদুল্লাহ হলে ৩৮৬ জন, জগন্নাথ হলে ৩১৩ জন, এবং সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে আবাসিক ও অনাবাসিক ১৭৮ জন ছাত্রছাত্রী ভর্তি হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান তথ্য সমূহ

  • বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৩ টি অনুষদ রয়েছে
  •  ৮৩ বিভাগ
  • ১৩ টি ইনস্টিটিউট
  •  ৫৭ টি ব্যুরো ও গবেষণা কেন্দ্র
  •  ১৯৮৬ জন শিক্ষক আছে
  •  ৪৭ হাজার ১৯৭ জন ছাত্র ছাত্রী
  • ১৯ টি আবাসিক হল রয়েছে
  •  ৪ টি  হোস্টেল রয়েছে

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়-বর্তমানে শিক্ষকদের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ ইউরোপা আমেরিকায় এশিয়া এবং অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রী প্রাপ্ত হয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাদান করে আসছেন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ডক্টর মোঃ ইউনুস গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা যিনি শান্তিতে নোবেল পেয়েছেন ২০০৬ সালে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষকের বর্তমানে  পৃথিবীর বিভিন্ন খ্যাতিমান বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতেছেন। এই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার উচ্চ মান বজায় রাখতে সকলে আপ্রাণ চেষ্টা করে থাকেন যার ফলশ্রুতিতে এ প্রতিষ্ঠানটি বলা হয়ে থাকে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড হিসেবে খ্যাতি লাভ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদ নাম

নাম প্রতিষ্ঠাকাল বিভাগের সংখ্যা প্রথম ডিন
কলা অনুষদ ১৯২১ ১৭ ড.আর.সি মজুমদার
বিজ্ঞান অনুষদ ১৯২১ অধ্যাপক ডব্লিউ.এ জেঙ্কিন্স
আইন অনুষদ ১৯২১ ড. এন.সি সেনগুপ্ত
চিকিৎসা অনুষদ ১৯৪৬ অঙ্গীভুত মেডিকেল কলেজ মেজর ডব্লিউ জে. ভারজিন
শিক্ষা অনুষদ ১৯৫৬ অঙ্গীভুত কলেজ ও ইনস্টিটিউট মো. ওসমান গনি
স্নাতকোত্তর চিকিৎসা বিজ্ঞান ও গবেষণা ১৯৭২ অঙ্গীভুত মেডিকেল কলেজ অধ্যাপক ডা. এন. ইসলাম
বিজনেস স্টাডিজ ১৯৭০ অধ্যাপক আব্দুল্লাহ ফারুক
জীব বিজ্ঞান অনুষদ ১৯৭৪ ১০ অধ্যাপক এ.কে.এম নূরুল ইসলাম
ফার্মেসি অনুষদ ১৯৯৫ অধ্যাপম ড. মুনীরউদ্দিন আহমেদ
চারুকলা অনুষদ ২০০৮ অধ্যাপক আব্দুস শাকুর শাহ্

 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবন

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়- ভবনটি পূর্ব বাংলার অবহেলিত নতুন প্রজন্মের নেতৃত্বে সৃষ্টিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবদান অনস্বীকার্য। এটি মূলত ১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পূর্ব পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট কথা এশিয়া মধ্যে উচ্চশিক্ষা বিশিষ্ট আবাসিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে গণ্য ছিল। যখন দেশভাগ হয় এরপরে বিশ্ববিদ্যালয় পূর্ব বাংলার মাধ্যমিক স্তরের উদ্বোধন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উপর কর্তৃত্ব গ্রহণ করা শুরু করে।এই প্রতিষ্ঠানটি গুরুদায়িত্বের ফলে জনবল সুযোগ-সুবিধার উপর ভীষণভাবে চাপ সৃষ্টি হয়।

পরবর্তীতে আরো কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হলেও এ বিশ্ববিদ্যালয়ের চাপ কখনো কমে যায়নি বরং দিন দিন আরো বেড়েই চলছিল। এ বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রশাসনিক ব্যবস্থা ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধকালে অভাবনীয় রূপ ক্ষতিগ্রস্ত সাধিত হয়। মুক্তিযুদ্ধের সময় এই প্রতিষ্ঠানের সুনামধন্য শিক্ষক ছাত্র-কর্মচারী নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট সমূহ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিগত নয় দশকের গৌরবময় ঐতিহ্য টিকে রেখেছেন আজকে যারা দেশের শিক্ষা বিজ্ঞান প্রযুক্তি, প্রশাসন, কূটনৈতিক, রাজনৈতিক, জনসংযোগ, ব্যবসা-বাণিজ্য ,শিল্প কলকারখানা, নিয়োজিত আছেন তাদের 70% এসেছেন এই স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় হতে।

আসলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কোন স্বাভাবিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়নি, এটি মূলত রাজনৈতিক ও সামাজিক অর্থনৈতিকভাবে যৌতুক প্রচেষ্টায় ভারত সরকারের উপরে চাপ প্রয়োগ করা হলে বঙ্গভঙ্গ  রদের রাজিব ক্ষতিপূরণ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য হিসেবে স্যার ফিলিপ জোসেফ হার্টগ হিসেবে তিনি প্রথম যোগদান করেন।  তিনি এর আগে ১৭ বছর লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় নিযুক্ত ছিলেন এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কমিশনের সদস্য ছিলেন। ১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গ কার্যকর হলে মুসলিম  সংখ্যাগরিষ্ঠ পূর্ব বাংলা ও আসাম প্রদেশের জনগণের মনে এক নতুন আসার তৈরির জাগিয়ে তোলে।

কিন্তু মাত্র ৬ বছরের ব্যবধানে হিন্দু সম্প্রদায়ের সকল বিরোধীতার মুখে এ বিভক্তি রদ করা হলে মুসলমান সমাজে একে তাদের একটি বড় ধরনের আঘাত  বলে মনে করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল/ হোস্টেল

নাম স্থাপিত  ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যা প্রথম প্রাধ্যক্ষ
সলিমুল্লাহ মুসলিম হল ১৯২১ ৭৪০ স্যার এ এফ রহমান
ডঃ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ হল ১৯২১ ১২৮৮ প্রফেসর এফ সি টার্নার 
জগন্নাথ হল ১৯২১ ১৫৭০ ডক্টর নরেশ চন্দ্র সেনগুপ্ত
ফজলুল হক মুসলিম হল ১৯৪০ ৭০৯ ডঃ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ
শহীদ সার্জেন জহুরুল হক ইকবাল হল ১৯৫৭ ১২৪৪ ডক্টর মফিজ উদ্দিন আহমেদ 
রোকেয়া হল ১৯৬৩ ২২৭৬ মিসেস আক্তার ইমাম
সূর্য সেন মোহাম্মদ আলী জিন্না হল  ১৯৬৬ ১০৮৬ প্রফেসর এম শফিউল্লাহ
পিজে হা হার্টগ

আন্তর্জাতিক ছাত্রাবাস ইন্টারন্যাশনাল হল

১৯৬৬ ৮৮ মোহাম্মদ আফসার উদ্দিন
হাজী মুহাম্মদ মহসিন হল ১৯৬৭ ১৪৯১ প্রফেসর মোহাম্মদ ইন্নাস আলী
শামসুন্নাহার হল ১৯৭১ ১২৪৮ ডক্টর সৈযদা ফাতেমা সাদেক 
কবি জসীমউদ্দীন হল ১৯৭৬ ৬৩৬ অধ্যাপক কে এম এ কামরুদ্দীন 
স্যার এ এফ রহমান হল ১৯৭৬ ৯৯২ ডক্টর এ এম এম নুরুল হক ভূঁইয়া
জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমান বঙ্গবন্ধুর হল  ১৯৮৮ ১০৮০ প্রফেসর আবু জাফর
মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল  ১৯৮৮ ৭০২ ডক্টর আ .ফ, ম খোদাদাদ  খান 
বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হল  ১৯৮৯ ৮০৪ ডঃ হামিদা আক্তার বেগম
অমর একুশে হল  ২০০১ ৭৬৫ ডক্টর শহীদ আখতার হোসেন
বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা  মুজিব হল ২০০০ ৯২৮ ডাক্তার নাসরিন আহমেদ 
কবি সুফিয়া কামাল হল ২০১২ ২৪০০ ডাক্তার নিলুফার নাহার
বিজয় ৭১ হল ২০১৩ ১৯২৪ ডাক্তার এস এম শফিউল্লাহ আলম ভূঁইয়া
নবাব ফয়জুন্নেসা চৌধুরানী ছাত্রী নিবাস ১৯৯৪ ১৩০ অধ্যাপক নুরজাহান সরকার 
আই বি এ হোস্টেল ১৯৮৬ ১৩৮ ডাক্তার আনোয়ার হোসেন
ড.কুদরাত -ই- খুদা  হোস্টেল  ১৯৮৫ ৩০৮ ডাক্তার মোঃ আব্দুল মোত্তালিব 
শহীদ অ্যাড লেট সুফিয়া কামাল হোস্টেল  ২০১৬ ১৩০ ফাতেমাতুজ জোহরা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কার্জন হল

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়-ব্রিটিশ ভাইস  লর্ড হার্ডিঞ্জ বাংলা বিভক্তি বাতিলের সিদ্ধান্তে মুসলিম সম্প্রদায়ের যে সমস্ত অসন্তোষ এর কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল তাদেরকে সান্তনা দেওয়ার জন্য ঢাকা ভ্রমণের সিদ্ধান্ত নেন। সেই সময় মুসলিম সম্প্রদায়ের কয়েকজন। 

সাক্ষাৎকারে তারা বঙ্গভঙ্গ রোহিত করার শিক্ষা ক্ষেত্রে তাদের অগ্রযাত্রা ভেঙ্গে পড়বে,  বলে তারা আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল। অতঃপর তারা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরোধিতার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে তারা ঢাকায় একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জোর দাবি জানান।

ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের  যেসব উপাচার্য দায়িত্ব পালন করেছিলেন ?

স্যার ফিলিপ জোসেফ হার্টগ ০১.১২.১৯২০ থেকে ৩১.১২.১৯২৫
অধ্যাপক জর্জ হ্যারী ল্যাংলী ০১.০১.১৯২৬ থেকে ৩০.০৬.১৯৩৪
স্যার এ.এফ রহমান ০১.০৭.১৯৩৪ থেকে ৩১.১২.১৯৩৬
ড. রমেশ চন্দ্র মজুমদার ০১.০১.১৯৩৭ থেকে ৩০.০৬.১৯৪২
ড. মাহমুদ হাসান ০১.০৭.১৯৪২ থেকে ২১.১০.১৯৪৮
ড. সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন ২২.১০.১৯৪৮ থেকে ০৮.১১.১৯৫৩
ড. ওয়াটার অ্যালেন জেঙ্কিন্স ০৯.১১.১৯৫৩ থেকে ০৮.১১.১৯৫৬
বিচারপতি মুহম্মদ ইব্রাহিম ০৯.১১.১৯৫৬ থেকে ২৭.১০.১৯৫৮
বিচারপতি হামুদুর রহমান ০৫.১১.১৯৫৮ থেকে ১৪.১২.১৯৬০
ড. মাহমুদ হোসেন ১৫.১২.১৯৬০ থেকে ১৯.০২.১৯৬৩
ড. মোহাম্মদ ওসমান গনি ২০.০২.১৯৬৩ থেকে ০১.১২.১৯৬৯
বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী ০২.১২.১৯৬৯ থেকে ২০.০১.১৯৭২
ড. মুজাফফর আহমেদ চৌধুরী ২১.০১.১৯৭২ থেকে ১২.০৪.১৯৭৩
ড. আবদুল মতিন চৌধুরী ১৩.০৪.১৯৭৩ থেকে ২২.০৯.১৯৭৫
অধ্যাপক মুহম্মদ সামসউল হক ২৩.০৯.১৯৭৫ থেকে ০১.০২.১৯৭৬
ড. ফজলুল হালিম চৌধুরী ০২.০২.১৯৭৬ থেকে ২০.০৩.১৯৮৩
ড. এ.কে.এম সিদ্দিক ২১.০৩.১৯৮৩ থেকে ১৬.০৮.১৯৮৩
ড. মোহাম্মদ শামসুল হক ১৭.০৮.১৯৮৩ থেকে ১২.০১.১৯৮৬
ড. আবদুল মান্নান ১২.০১.১৯৮৬ থেকে ২২.০৩.১৯৯০
অধ্যাপক এম মনিরুজ্জামান মিয়া ২৪.০৩.১৯৯০ থেকে ৩১.১০.১৯৯২
অধ্যাপক এমাজউদ্দিন আহমদ ০১.১১.১৯৯২ থেকে ৩১.০৮.১৯৯৬
অধ্যাপক শহীদউদ্দিন আহমেদ ৩১.০৮.১৯৯৬ থেকে ২৯.০৯.১৯৯৬
অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ চৌধুরী ৩০.০৯.১৯৯৬ থেকে ১২.১১.২০০১
অধ্যাপক ড. আনোয়ার উল্লাহ চৌধুরী ১২.১১.২০০১ থেকে ৩১.০৭.২০০২
অধ্যাপক ড. এ.এফ.এম ইউসুফ হায়দার ০১.০৮.২০০২ থেকে ২৩.০৯.২০০২
অধ্যাপক ড. এস.এম.এ ফায়েজ ২৩.০৯.২০০২ থেকে ১৬.০১.২০০৯
অধ্যাপক ড. আ.আ.ম.স আরেফিন সিদ্দিক ১৭.০১.২০০৯ থেকে ০৫.০৯.২০১৭
অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান ০৬.০৯.২০১৭ থেকে বর্তমান

সমাপনীঃ উপরিক্ত আলোচনা দ্বারা ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয়- সম্পর্কে যেটুকু তথ্য-উপাত্ত প্রদান করা হলো আশা করি আপনাদের উপকারে আসবে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্পর্কে পরবর্তীতে আরো যাবতীয় তথ্য আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব। আশা করি আপনারা আমার এই কন্টেইনটি ভালোভাবে বুঝতে পারলে অনেক জ্ঞানের অধিকারী হবেন। আজকের মতো এখানেই শেষ করছি সবাই ভালো থাকবেন ভালো থাকার চেষ্টা করবেন ,সবাইকে ধন্যবাদ আল্লাহ হাফেজ। 

admin

মোঃ শফিকুল ইসলাম লেবু (Lecturer) ডালিয়া, ডিমলা, নীলফামারী। আমি বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে কন্টেইন ও ব্লগিং পোষ্ট করে থাকি, এ ব্যাপারে পাঠকগন মতামত দিলে - যথাসম্ভব উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *