আন্তর্জাতিক

পাসপোর্ট করার সহজ উপায়,কি কি লাগবে, খরচ কত হবে ?

পাসপোর্ট করার জন্য প্রথমে যে কাজটা করতে হবে, পাসপোর্ট প্রক্রিয়ার অনেক ধাপ অতিক্রম করতে হয়। অনেকের কাছে কাজটি জটিল মনে হলেও আসলে এত জটিল কাজ নয়।  পাসপোর্ট করার সহজ উপায়তাই প্রচলিত নিয়মে এম আর পি পাসপোর্ট সবার জন্য প্রযোজ্য। আজকে আমি আর্টিকেল লেখতেছি তাদের জন্য যারা প্রথম পাসপোর্ট করতে চান ? পাসপোর্ট করার সহজ উপায়-নিম্নে ধারাবাহিকভাবে বর্ননা করা হলো। https://daliatista.com

পাসপোর্ট করার জন্য যে সমস্ত দরকারী কাগজপত্র লাগবে

  1. পাসপোর্ট ফি জমা দেওয়া।
  2. প্রয়োজনীয় তথ্য রেডি করা।
  3. পাসপোর্ট আবেদন ফরম পূরণ করা।
  4. আবেদন ফরম পাসপোর্ট অফিসের জমা দেওয়া।
  5. পুলিশ ভেরিফিকেশন করা।
  6. পাসপোর্ট সংগ্রহ করা।

১। পাসপোর্ট ফি জমা দেওয়া- 

পাসপোর্ট করার সহজ উপায়-পাসপোর্ট এর প্রথম কাজ শুরু করা হয় পাসপোর্ট এর ফি বা টাকা জমা দেওয়ার মাধ্যমে। পাসপোর্ট এর  ফি মূলত দুইভাবে জমা দেওয়া যায়। আপনি যদি অফিসে গিয়ে আবেদন করতে চান ? ব্যাংকে ফি জমা দিতে হবে।

আর যদি আপনি সরাসরি অনলাইনে আবেদন করেন তাহলে, অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়ার শেষের দিকে ফি জমা দেওয়ার অপশন আছে। মূলত পাসপোর্ট এর  ফি বা খরচ নির্ভর করে আপনি কত দিনের মধ্যে পাসপোর্ট পেতে চান তার উপর। এম আর পি পাসপোর্ট পাওয়ার জন্য দুই ধরনের সুযোগ আছে।

১। সাধারন পাসপোর্ট এটি পেতে আপনাকে কমপক্ষে একই দিন অপেক্ষা করতে হবে।

২।  জরুরী পাসপোর্ট এই পাসপোর্টটি পেতে আপনাকে ৭ দিন অপেক্ষা করতে হবে।

কত টাকা লাগেবে ?

সাধারণ পাসপোর্ট এর জন্য ৩৪৫০ টাকা।

 জরুরী পাসপোর্ট এর জন্য ৬৯০০  টাকা প্রদান করতে হবে। তাই আপনি কোন ধরনের পাসপোর্ট পেতে চান ? আপনার চাহিদার উপরে নির্ভর করবে পাসপোর্ট।

ব্যাংকের মাধ্যমে ফি জমা দেওয়া-

টাকা জমা দেওয়ার পরে নির্দিষ্ট শ্লিপ দেবে সেই স্লিপ প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করে জমা দেওয়া হয়ে গেলে, একটি রশিদ পাবেন যার দুটি পার্ট  থাকবে  একটা হচ্ছে কাস্টমার পার্ট।

পাসপোর্ট করার সহজ উপায়

খেয়াল রাখতে হবে- আপনি যে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে পাসপোর্ট করেন। সেই এলাকার ব্যাংক থেকে টাকা জমা দিতে হবে আপনি স্লিপে যেভাবে নাম লিখবেন পাসপোর্টে আপনার সেভাবে নাম চলে আসবে।  জমা দেওয়ার ৬ মাসের মধ্যেই অবশ্যই পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করতে হবে। তা না হলে ছয় মাস পার হলে আবার নতুন করে ব্যাংকে টাকা আপনাকে জমা দিতে হবে।

  • সোনালী ব্যাংক
  •  ঢাকা ব্যাংক 
  • ওয়ান এশিয়া 
  • ট্রাস্ট ওয়ান ব্যাংক
  •  এশিয়া ব্যাংক
  •  প্রিমিয়ার ব্যাংক
  • ওয়ান এশিয়া

অনলাইনে আবেদন করার পর ফি জমা দেওয়া

  www.passport.gov.bd এই সাইটে সঠিক তথ্য দিয়ে ফরম পূরণ করে শেষে কিছু চার্জ কেটে নিবে। অতঃপর টাকা জমা দেওয়ার পর একটি চালান ফরম পাবেন এই ফর্মটি একটি পেজের দুইটি প্রিন্ট করে একটি নিজের জন্য অন্যটা পাসপোর্ট এর জন্য ব্যবহার করতে পারবেন।

২। পাসপোর্ট করতে যেসব ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে

পাসপোর্ট করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে যে দরকারি বিষয় হলো কাগজ প্রসেস করা। কারণ অনেক সময় পাসপোর্ট ফি জমা দেওয়ার পর দেখা যায় সব ডকুমেন্ট ভালোভাবে রেডি করা নাই । তখন অনেক বাড়তি জামলা এসে পড়ে, ওই পাসপোর্ট করতে অনেক দেরি হয়ে যায় তাই পাসপোর্ট করার আগেই আপনাকে সকল কাগজপত্র রেডি করে রাখতে হবে।

  •  ১৮ বছরের নিচে হলে তাদের জন্ম নিবন্ধনের সত্যায়িত লাগবে।
  •  পেশাগত সার্টিফিকেটের ফটোকপির সত্যায়িত কপি।
  •  সরকারি চাকরিজীবী ও তাদের স্ত্রী স্বামী সন্তানের ক্ষেত্রে চাকরিজীবী ব্যক্তির কর্মস্থল থেকে ইস্যু করা এনওসি বা জিও জমা দিতে হবে।

৩। যেভাবে পাসপোর্ট ফরম পূরণ করবেন

দুই ভাবে পাসপোর্ট আবেদন ফরম পূরণ করা যায় পাসপোর্ট ফরম ডাউনলোড সংগ্রহ করে নিজ হাতে পূরণ করা অথবা অনলাইনে তথ্য পূরণ করা।

৪। পাসপোর্ট ফরম পূরণে সংশ্লিষ্ট কাগজ সত্যায়িত করতে হবে

 পাসপোর্ট ফরমটি শেষ হয়ে গেলে ফর্মটি দুই সেট প্রিন্ট করে নেবেন একটি পাসপোর্ট অফিসের জন্য আরেকটি সেট এফবি অফিসে পাঠানো হবেফর্মটি প্রিন্ট হলে ফর্ম এর ছবির জায়গায় পাসপোর্ট সাইজের একটি শব্দ তোলা ছবি লাগাতে হবে আর দুই কপি ফরমেট যে কোন এক রাতে ব্যাংকের রশিদের পাসপোর্ট অফিসের কবিতা কেটে ডান পাশে লাগাবেন

৫। পাসপোর্ট  টোকেন সংগ্রহ ও  স্ট্যাটাস চেক

ফরম জমা দেওয়া শেষ হলে কম্পিউটার পিন করে একটি টোকেন দেওয়া হবে। সেখানে আপনার তথ্য পাসপোর্ট ডেলিভারির সময়সহ অন্যান্য কিছু তথ্য থাকবে, এই টোকনের তথ্যগুলো খুব বা চেক করবেন।  এবং সেই অনুসারে আপনাকে প্রিন্ট করতে হবে, কোন ধরনের ভুল ধরা পড়লে তখন এটা সংশোধন করবেন । টোকেনটি রেখে দেবেন পরবর্তীতে পাসপোর্ট জন্য পরবর্তীতে কাজে লাগবে।

পাসপোর্ট স্ট্যাটাস চেক করার জন্য www.passport.gov.bd এই সাইটে অপশনে গিয়ে হ্যান্ড রোলমেন্ট আইডি ও জন্ম তারিখ দিয়ে অনলাইনে পাসপোর্ট স্ট্যাটাস চেক করা যায় পাসপোর্ট টোকেন  Enrollment ID দেওয়া থাকে। https://vromonguide.com

৭। সর্বশেষ পাসপোর্ট সংগ্রহ করবেন 

অতঃপর উপর উপরিক্ত সকল তথ্য উপাত্ত সঠিক থাকলে আপনার পাসপোর্ট এর ধরন অনুযায়ী ১ সপ্তাহ ২০/ ৩০ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট পেতে পারেন। পাসপোর্ট রেডি হলে আপনার মোবাইলে মেসেজ আসবে। 

মোটকথাঃ উপযুক্ত পাসপোর্ট সংক্রান্ত যে সমস্ত ক্রাইটেরিয়া নিয়ে আলোচনা করা হলো তা একজন পাসপোর্ট ধারি তার সকল কাগজপত্র জমা দেওয়া সাপেক্ষে পাসপোর্ট পেতে সক্ষম হবেন । আশা করি আমার এই কন্টেইনটি আপনাদের ভাল  লাগবে এখানেই শেষ করছি আল্লাহ হাফেজ।

admin

মোঃ শফিকুল ইসলাম লেবু (Lecturer) ডালিয়া, ডিমলা, নীলফামারী। আমি বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে কন্টেইন ও ব্লগিং পোষ্ট করে থাকি, এ ব্যাপারে পাঠকগন মতামত দিলে - যথাসম্ভব উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *