সাধারন জ্ঞান

প্রবাদ বাক্য শিখুন ও বলুন অতঃপর ৬০ টি প্রবাদ বাক্য আজীবন মনে রাখার চেষ্টা করুন ?

প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন-প্রবাদ বাক্য এমন একটি বাক্য যা একজন মানুষ অল্প কথায় অনেক বড় কথা বলে থাকে। আর এর মাঝেই অনেকের স্বাদ বিষাদ দুঃখ বেদনা সহ অনেক ভাষা সেখানে লুকায়িত থাকে, যে একজন শিক্ষিত মানুষের ভাষা প্রবাদ বাক্য দিয়েই অন্যকে সমন্ধন করে থাকে, আর এ প্রবাদ বাক্যের মাধ্যমেই আমরা বিভিন্ন ভাবে মনের ভাষা আদান-প্রদান করে থাকি।প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন- সে ক্ষেত্রে প্রবাদ বাক্যের কোন জুড়ি নেই তাই আপনার যদি  ভালো ভাষা জ্ঞান দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি আপনার পরিবার আত্মীয়-স্বজন এবং বন্ধু বান্ধবের মাঝে এ প্রবাদ বাক্যগুলো শেয়ার করতে পারেন । আজকে আমার এই আর্টিকেলটিতে প্রবাদ বাক্য সম্পর্কে আলোচনা করব। প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন-যা একজন পাঠক সহজেই বাক্যগুলো আয়ত্তে আনতে পারবে এবং বাস্তবে এর প্রতিফলন ঘটাতে পারবে তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক- আজকের এই  প্রবাদ বাক্যের তালিকা-http://daliatista.com

৬০ টি প্রবাদ বাক্যের তালিকাঃ

 অতি দর্পে হত লঙ্কাঃ এখানে বলা হচ্ছে যে যত বেশি অহংকার করবে যত বেশি দাপট জশ খ্যাতি দেখাইয়ে বেড়াবে তার অহংকার পতন হবেই তাই অহংকার হচ্ছে পতনের মূল কারণ।

চকচক করলে সোনা হয় নাঃ আমরা অনেক সময় দেখি বাহিরে অনেক সুন্দর ফিটফাট ভাবে চলাফেরা করে, কিন্তু ভিতরে তার আসলে কোন কিছুই নাই যা দেখা যায় সবই তার সামনেই মূলত তার কোন  সম্পদ নেই।

অল্প জলের মাছঃ  অল্প জলের মাছ সাধারণত লাফালাফি করে বেশি এবং সে জানেনা যখন তখন তার বিপদ নিকটে আসে তাই মূলত সে নিত্যান্তই বোকা স্বভাবের।

অন্ধকে দর্পণ দেখানোঃ আসলে মূলত একজন নির্বোধ বোকা কে আমরা যখন আশার আলোর বাণী শুনিয়ে থাকি তখন কিন্তু তার মনে এসব আকৃষ্ট করে না অতএব  তাকে আমরা অযথা জ্ঞান দান করে থাকি।

আষাঢ়ের তর্জন গর্জনেই সারঃ আষাঢ় মাসে সাধারণত আকাশের মেঘ যেভাবে ডাকাডাকি এবং গর্জন তো অর্জন দিয়ে থাকে মূলত বৃষ্টির সম্ভাবনা খুব কম হয়ে যায়। অতএব গুণীহীনদের বৃথা আস্ফলন ছাড়া আর কিছুই নয়।

ওঝার ব্যাটা বন গরুঃ  আমাদের সমাজে অনেক সময় দেখা যায় পন্ডিত  স্বভাবের মানুষ   তার অনেক জ্ঞান দক্ষতা তার মাধ্যমে অনেক মানুষ উপকৃত হয় কিন্তু আসলেই তার সন্তান অনেক সময় মূর্খ পুত্র হিসেবে থাকে।

 কপাল গুনে গোপাল ঠাকুরঃ অযোগ্যের ভাগ্য গুনে বড় হওয়া ছাড়া আর কিছুই নয় শত যোগ্যতা থাকার পরেও মানুষের ভাগ্য উন্মোচন হয় না কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় অযোগ্য লোকেই ভাগ্য গুনে বড় জায়গা দখল করে থাকে।

কাঁচা বাঁশে ঘুন ধরাঃ এটি বাক্যটিতে মূলত অল্প বয়সেই অনেকেরই স্বভাব চরিত্র নষ্ট হয়ে যায় । http://www.google.com

খিচুড়ি পাকানোঃ অনেক সময় আমরা দেখি আমাদের সমাজে পরিবারে এমনকি রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাতেও বিভিন্ন প্রকার বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি তৈরি করে । এটি মূলত জগা খিচুড়ি ছাড়া আর কিছুই নয়।

গন্ধ মানব  বয়ে আনাঃ এটি মূলত এই বাক্যে একজন মানুষ প্রয়োজনে যতটুকু কাজ করতে সক্ষম তার চেয়ে বেশি কাজ করে অতিরিক্ত কিছু নিয়ে আসার নামই হচ্ছে গন্ধ মানব বয়ে নিয়ে আসা।

প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন

 গাছে কাঁঠাল গোঁফে তেলঃ প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন- আমরা অনেক সময় দেখি তার সম্ভাবনাময় অনেক দূরে হওয়া শর্তেও তার ভিতরে এত পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা থাকে যে, মনে হয় সে ভোগের আগে বিশেষ আয়োজন করে থাকে।

ঘুটে পোড়ে গোবর হাসেঃ  এই বাক্যটিতে একজন মানুষ অন্যের কষ্ট দুঃখ দেখে ব্যতীত না হয়ে, বরং তার কষ্ট দেখে সে আনন্দ উল্লাস করে থাকে।

চাল না চুলো  ঢেঁকি না কুলুঃ একজন ব্যক্তি তার সকল স্থাবর অস্থাবর হারিয়ে যখন রাস্তায় একাকীত্ব তার জীবন যাপন করে থাকে, তখন আসলেই সে নিত্যন্ত নিস্ব হিসাবেই পরিচিতি লাভ করে।

জুতো সেলাই থেকে চণ্ডীপাঠঃ একজন মানুষের যে কাজ করা যায় না সে সকল কাজও যদি সে করে থাকে অর্থাৎ সে সকল ধরনের ছোট বড় সকল কাজেই সে করে থাকে।

 ঝোপ বুঝে কোপ মারাঃ আমরা এই প্রবাদ বাক্যটিতে অনেকেই  অন্যের বিপদ আপদ ও আনন্দ দুঃখ বুঝে সুযোগ মতো কাজ করা হয়ে থাকে।

টোটো কোম্পানির ম্যানেজারঃ টোটো কোম্পানি আসলেই কোন একটি কোম্পানি নয় এটি হচ্ছে মূলত প্রবাদ বাক্য হিসেবে ব্যবহার করা হয়। একজন মানুষ তার সারাদিনে কোন কাজ কাম না করে সে ভবঘুরে এখান থেকে সেখানে ঘুরে বেড়ায়।

তেলের মাথায় তেল দেওয়াঃ আমাদের সমাজে পরিবারে দেখা যায় যার অনেক কিছু আছে তাকে আমরা আরো বেশি প্রাধান্য অর্থ  পতিপত্তি দিয়ে থাকি, যার আছে তাকে আমরা আরো দেওয়ার চেষ্টা করি।

দুধ কলা দিয়ে সাপ  পোষাঃ প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন-আমরা অনেক সময় আমাদের চারপাশে অনেক বন্ধু-বান্ধবের সাথে চলাফেরা করি, এবং তাকে আমরা সর্বোচ্চ বিলিয়ে দিয়ে থাকি, একসময় দেখা যায় সে, সর্বস্ব নিঃস্ব করে চলে যায় শত্রুকে সযত্নে লালন-পালন করে থাকে।

ধান ভানতে শিবের গীতঃ আমাদের সমাজে অনেক ধরনের লোক আছে যা কারণে-অকারণে অপ্রাসঙ্গিক কথার অবতারণা ঘটায় আর এটা দেখে আমরা অনেকেই আবার আনন্দ পাই।

ধর্মের  ঢাক আপনি বাজেঃ পাপ কখনো চাপা থাকে না কোন না কোন সময় সে প্রকাশ পাবেই তাই আপনি যতই ঢাকার চেষ্টা করুন না কেন? একদিন না একদিন তা প্রকাশ পাবেই।

ধর্মের কল বাতাসে নড়েঃ  অপকর্ম করলেই প্রকাশিত হয়ে পড়েই এটাই নিয়ম যে, অপকর্মে করুক না কেন কোন এক সময় তা প্রকাশ পাবে।

ধরাকে সরা জ্ঞান করাঃ এটি মূলত সকলকে তুচ্ছ ভাবা। কারণ অনেক সময় দেখা যায় সে অনেক বড় মাপের কথাবার্তা চালচলন স্বভাবের হয়ে থাকে, মূলত এ সকল স্বভাবের মানুষ এই কাজগুলো করে থাকে।

ধরি মাছ না ছুই পানিঃ কৌশলে কার্যসিদ্ধি করা। আমাদের মাঝে আছে অনেকেই সে কিছুই জানে না বোকা স্বভাবের থাকে কিন্তু ভেতরের কল কাটি সবই সে মেরে তার কাজ সমাপ্ত করে।

নাকে তেল দিয়ে ঘুমানোঃ, নিশ্চিত জয়লাভ, অনেক সময় আমাদের মাঝে সংশয় সন্দেহ কাজ করে থাকে, তার প্রতিউত্তরে অনেকেই বলে যে নাকে তেল দিয়ে ঘুমাও মনে হচ্ছে কোন সমস্যা নেই।

বরের ঘরে পিসি কনের ঘরে মাসিঃ এটি এমন একটি স্বভাব চরিত্রের যা উভয়কুল রক্ষা করার জন্য চেষ্টা করা হয়।

বোঝার উপর শাকের আটিঃ অতিরক্তের চেয়ে অতিরিক্ত বহন করার নামই হচ্ছে এই বাগধারাটির মূল আলোচ্য বিষয়।

বাঘে গরুতে এক ঘাটে জল খাওয়াঃ ক্ষমতা প্রদর্শন শত্রু যখন মিত্রের বাড়িতে বা তার পাশে বেড়াতে যায় অতি সাহস প্রদর্শন করে থাকে।

বাজারে কাটাঃ যা মূলত এটি বিক্রি হয়ে যাওয়া অথচ আমরা কোন কিছু বিক্রি হয়ে যাওয়ার পরেও অযথা পাওয়ার চেষ্টা করে থাকি।

ভদ্রতার বালাইঃ এই প্রবাদ বাক্যে মূলত সাধারণ  সৌজন্যবোধ থাকা কে বুঝানো হয়েছে অনেক সময় আমরা কারণে অকারণে ভদ্রতা ছাড়াই কথা বলতে শুরু করি। প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন-

কালো মেঘের ছায়াঃ অশুভ লক্ষণ আমাদের সামনে কোন কাজের বিষয়ে কথা বলতে গেলে প্রথমেই বিড়ম্বনার শিকার হওয়া।

যত দোষ নন্দ ঘোষঃ এজন্য দুর্বলের প্রতি সর্বদা দোষারোপ করা অনেক সময় যেকোনো সমস্যায় আসুক না কেন তুই দুর্বলের প্রতি দোষারোপ করলে মনে হয় রক্ষা পাওয়া যায়।

 অধিক সন্ন্যাসীতে গাজন নষ্টঃ একটি কাজ যখন দুই একজন করা সম্ভব হয় সেখানে যদি সেই কাজটি আরো অনেক লোক ধরে তাহলে সে কাজের বিশৃঙ্খলা ঘটে থাকে।

 অল্প বিদ্যা ভয়ংকরীঃ আমাদের সমাজে অনেক মানুষ আছে যা কিছু শিক্ষা গ্রহণ করেছে কিন্তু সে সমাজে এত বেশি জ্ঞান দান দিয়ে থাকে যে মনে হয় সকল কিছু তার নব দর্পনে। তাই স্বল্প জ্ঞান নিয়ে বাড়াবাড়ি মূর্খতার পরিচয়।

আগ নাংলা যে দিকে যায় পাছ নাংলা সেদিকে যায়ঃএটি অন্যকে অনুসরণ করা একজন ব্যক্তি যদি কোন কাজ করে থাকে সেটি ভালো হোক আর মন্দ হোক সেটি বিচার না করে অনেকেই কাজ করে থাকি।

ইটটি মারলে পাটকেলটি খেতে হয়ঃ এটি মূলত যেমন কর্ম তেমন ফল ভোগ করতে হয় আপনি যে ধরনের কাজ করবেন আপনাকে সে ধরনের ফল ভোগ করতে হবে। প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন- 

ইল্লোত যায়না ধুলে খাসলত যায়না মলেঃ স্বভাব দোষ হাজার বার সংশোধন করার পরেও কখনো  তা দূর হয়ে যায় না।

চেনা বামুন এর পৈতা লাগেনাঃ মানি ব্যক্তির মান কখনো পরিচয় এর প্রয়োজন হয় না তাই তাই যে ভাবে চলুক না কেন তাকে সবাই সম্মান করবেই।

চোর না শুনে ধর্মের কাহিনীঃ আপনি অসাধুকে যতই উপদেশ বাণী দিয়ে শতকরা চেষ্টা করেন না কেন সে কখনোই আপনার এ সমস্ত বাণী মনে রাখবে না।

ঝিকে মেরে বউকে শেখানোঃ একজনকে বকা দিয়ে অপরজনকে শিক্ষা দেওযা । অনেক সময় উপরের কাউকে শাসন করতে গেলে নিচের লোকজনদের শাসন করলেই উপরের লোকটিকে বোঝানোর চেষ্টা করা হয়।

ঢাল নেই  তলোয়ার নেই নিধিরাম সরদারঃ যোগ্যতা দক্ষতা কোন কিছুই থাকে না যে ব্যক্তির সেই ব্যক্তি আবার মুখে অনেক বড় বড় কথা বলে।

দেবতার বেলা নিলাখেলা পাব লিখেছে মানুষের বেলাঃ এটি এই বাক্যটিতে বলা হয়েছে সামাজিক বিধি-বিধানের অপপ্রয়োগ ব্যবহার করা।

পরের মাথায় কাঁঠাল ভাঙ্গাঃ অপরকে কষ্ট দিয়ে নিজের স্বার্থ উদ্ধারের নামেই এই বাক্যের মূল কথা বলা হয়েছে।

পড়েছি মোগলের হাতে খানা খেতে হবে সাথেঃ বিপদে পড়ে কাজ করতে হয় আপনি ইচ্ছাকৃত হোক আরো অনিচ্ছাকৃত হোক আপনি যখন কোনভাবেই কোনখানে আটকে যান তবে সেখানেই এই কাজটি করতেই হবে।

পুরান চালে ভাতে বাড়েঃ অভিজ্ঞতা প্রবীনদের সবচেয়ে বেশি মূল্য। যে কাজের অভিজ্ঞতা বেশি সে কাজের মূল্য বেশি তাই যে যত বেশি প্রবীণ হবেন তার অভিজ্ঞতা তত বেশি হবে।

সমাপনীঃ প্রবাদ-বাক্য-শিখুন-ও-বলুন-উপযুক্ত আলোচনা দ্বারা বোঝানো হয়েছে যে আপনি ব্যক্তিগত সামাজিকভাবে ও বিভিন্ন চাকুরী,একাডেমিক পরীক্ষা,ভর্তি পরীক্ষা  প্রতিযোগিতায় যদি অংশগ্রহণ করেন। তাহলে এই প্রবাদ বাক্যগুলো মনে রাখতে পারলে, আপনি অনায়াসে এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হবেন। আশা করি আপনারা আমার এই কন্টেইনটিতে যে সমস্ত প্রবাদ বাক্য দেওয়া হয়েছে তা সকলেই বুঝতে সক্ষম হবেন।আজকের মত এখানেই শেষ করছি আল্লাহ হাফেজ।

admin

মোঃ শফিকুল ইসলাম লেবু (Lecturer) ডালিয়া, ডিমলা, নীলফামারী। আমি বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে কন্টেইন ও ব্লগিং পোষ্ট করে থাকি, এ ব্যাপারে পাঠকগন মতামত দিলে - যথাসম্ভব উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *